13

ই-কমার্স অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (ই-ক্যাব) তার সূচনালগ্ন থেকে বাংলাদেশের ই-কমার্সকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য বদ্ধপরিকর। ই-কমার্সের বিবিধ ডোমেইনগুলোর একটি হলো ডেলিভারি সার্ভিস। দেশের প্রচলিত ডেলিভারি সার্ভিসগুলোকে সহযোগিতা দেয়ার লক্ষ্যে ই-পোস্ট ই-ক্যাবের একটি উদ্যোগ। ই-পোস্ট একটি অনলাইন প্ল্যাটফর্ম যেখানে ডেলিভারি ট্রাকিং, মনিটরিং এবং স্বয়ংক্রিয় সাপোর্ট প্রদানের লক্ষে দেশের ই-কমার্স ব্যবসায়ী এবং ডেলিভারি সার্ভিস প্রদানকারীদের নিয়ে আসা হবে। সময় উপযোগী ডেলিভারি সার্ভিস প্রদান যথার্থ ই-কমার্স ব্যবসার অন্যতম প্রধান চাহিদা। যেকোন প্রাইভেট ডেলিভারি সার্ভিস প্রদানকারীর পক্ষে লজিস্টিক অবকাঠামো গঠন একটি দুরূহ কাজ। সে জন্য দেশের প্রাইভেট ডেলিভারি সার্ভিস প্রদানকারীরা  সাধারণত  জেলা  শহরগুলোকে জোনে ভাগ করে নিয়ে তাদের সেবা প্রদান করে।

এবং এক ডেলিভারি কোম্পানির পক্ষে সব জেলাতে এখন পর্যন্ত সেবা প্রদান করা সম্ভব হয়নি। যার ফলে একজন ই-কমার্স ব্যবসায়ী দেশব্যাপী ব্যবসা পরিচালনায় এক ডেলিভারি সার্ভিস প্রদানকারীর উপর নির্ভর করে থাকতে পারে না। ই-পোস্ট এই সমস্যা সমাধানে একই প্ল্যাটফর্মে আস্থাভাজন ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের এবং ডেলিভারি সার্ভিস প্রদানকারীদের সংযুক্ত করছে।

যে কারণে বিভিন্ন ডেলিভারি সার্ভিস প্রদানকারীগণ যেমন দেশের প্রথম সারির ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের সাথে কাজ করার সুযোগ পাচ্ছে, তেমনি ই-কমার্স ব্যবসায়ীরা তাদের চাহিদামত জোনে সারা দেশব্যাপী তাদের ব্যবসা প্রসারের সুযোগ পাচ্ছে। একই সাথে এই প্ল্যাটফর্ম ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের এবং ডেলিভারি সার্ভিস প্রদানকারীদের মধ্যে যোগাযোগের মিডিয়া হিসেবে কাজ করবে। বাংলাদেশ পোস্ট অফিস ই-পোস্টের প্রধান লজিস্টিক পার্টনার হওয়ায় ই-পোস্ট দেশের গ্রাম অঞ্চল পর্যন্ত প্রোডাক্ট ডেলিভারির নিশ্চয়তা প্রদান করে।

ই-পোস্টের সাথে সংযুক্ত যেকোন ই-কমার্স সাইট হতে ক্রেতা প্রোডাক্ট অর্ডারদেয়ার পর প্রোডাক্ট ক্রেতার হাতে পৌঁছানো পর্যন্ত ডেলিভারি ট্র্যাকিংয়ের ব্যবস্থা রয়েছে। দেশের উপজেলা পর্যায়ে ডেলিভারি পৌঁছে দেয়ার জন্য বাংলাদেশ পোস্ট অফিসকে যুক্ত করা হয়েছে।এর ফলে ই-পোস্ট প্রোডাক্ট ডেলিভারির জন্য ক্রেতার এবং ই-কমার্স ব্যবসায়ীদের কাছে নির্ভরযোগ্য প্ল্যাটফর্ম হিসেবে ব্যবহৃত হবে। প্রতি ডেলিভারি একটি আইডি নাম্বার দিয়ে নির্ধারিত যাতে করে প্রতি ডেলিভারি সংক্রান্ত তথ্যাদি ডাটাবেজে সংরক্ষিত থাকে। এই তথ্যাদি পরবর্তীতে দেশের ডেলিভারি সার্ভিসের মান উন্নয়ন, দেশের প্রান্তিক পর্যায়ের লজিস্টিক অবকাঠামো উন্নয়ন এবং অনলাইন ব্যবহারকারীদের স্বয়ংক্রিয় সাপোর্ট প্রদানসহ বহুবিধ কাজে প্রয়োজন হবে।  বর্তমানে বাংলাদেশ পোস্ট অফিসের সহযোগিতায় ই-পোস্ট পাইলট প্রকল্প হিসেবে ঢাকা বিভাগে ২০টি পোস্ট অফিসে কর্মচারীদের ব্যবহার করা ট্রেনিং করা হয়েছে।

অতি শীঘ্রই ৬৪ জেলা শহরে এই ট্রেনিং আয়োজিত হবে। এছাড়াও ৬৪ জেলা শহরের সকল পোস্ট অফিসকে এর আওতায় নিয়ে আসার পরিকল্পনা রয়েছে। পরিকল্পনা সফলভাবে বাস্তবায়িত হলে সমগ্র দেশে ডেলিভারি সার্ভিস সহজ, সুলভ, নির্ভরযোগ্য এবং মানোন্নত হবে, সেই সাথে দেশের ই-কমার্স সেক্টর এক ধাপে অনেক দুর এগিয়ে যাবে একথা নিশ্চিত করে বলা যায়।