5

অন্যতম পরিচিত আইসিটি ম্যাগাজিন কমপিউটার জগৎ-এর আয়োজনে আগামী ২৫-২৭   বেগম সুফিয়া কামাল জাতীয় গণগ্রন্থাগার, শাহবাগে শেষ হয়ে গেল ই-বানিজ্য মেলা ২০১৪।

ই-কমার্স সাইট বাংলাদেশে এখন দিন দিন বেড়েই চলেছে। বাংলাদেশে এখন প্রায় চার কোটি ইন্টারনেট ব্যবহারকারী রয়েছে। তরুণ-তরুণীই এই ইন্টারনেট ব্যবহারকারীদের মধ্যে বেশি। যারা ইন্টারনেট ব্যবহার করে তাদের প্রায় সকলেই ই-কমার্স সম্পর্কে কম বেশী আগ্রহী। ৯টা-৫টা চাকরি না করে অনেকে তরুণ-তরুনিই  তাদের নিজেদের ই-কমার্স কোম্পানী প্রতিষ্ঠা করেছে এবং তাদের অনেকেই সফল হয়েছে। ছোট বড় মিলিয়ে বর্তমানে দেশে কয়েক শ ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান রয়েছে। এছাড়াও প্রায় দুই হাজার অনলাইন ই-কমার্স প্রতিষ্ঠান রয়েছে।

দেশের একমাত্র ই-কমার্স মেলায় দেখে মিলবে সেই সকল প্রতিষ্ঠানের। প্রতিষ্ঠানগুলো তাদের পণ্য এবং সেবাসমূহ দর্শনার্থীদের কাছে তুলে ধরবে। পাশাপাশি ই-কমার্সে বাংলাদেশের বর্তমান এবং ভবিষ্যৎ নিয়ে থাকবে মেলাতে সেমিনার, কর্মশালা, এওয়্যার্ড নাইট সহ ইত্যাদি। এছাড়াও ই-ডাইরেক্টরি প্রকাশ এবং গেমিং প্রতিযোগিতাসহ থাকছে নানা আকর্ষণ। যা দর্শনার্থীদের দিবে বার্তি আনন্দ।

এবারের ঈদে অনলাইন ভিত্তিক বাজার প্রায় ৫০০ কোটি টাকা ছাড়িয়ে গিয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। এসব অনলাইন কেনাকাটার প্রায় শত ভাগই ই-কমার্স প্রক্রিয়ায় অর্থাৎ অনলাইনের মাধ্যমে হয়ছে। তবে অনলাইনে কেনাকাটার ৭৫% হয় ঢাকায় আর বাকীটা চট্টগ্রাম, খুলনা, সিলেট, রাজশাহী, বরিশাল, বগুড়াসহ অন্যান্য এলাকায়। ঢাকার পাশাপাশি তাই অন্যান্য অঞ্চলগুলার দিকেও মেলা কর্তিপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষন করা উচিৎ।

বাংলাদেশের ই-কমার্সের ভবিষ্যত যে খুবই উজ্জল তা স্পস্টতই লক্ষ করা যাবে অতিতের দিনগুলো দেখলে। গেল বছর যেখানে অনলাইন কেনাকাটার সংখ্যা যেখানে ১০০ কোটি টাকার নিচে ছিল সেখানে গেল ঈদ তা প্রায় ৫০০ কোটির কাছাকাছি চলে এসেছে।

ডেভেলোপড দেশগুলতে ই-কমার্স মানুষের জীবন দিন দিন আরও সহজ করে তুলেছে। বাজার কিংবা মার্কেট তাদের হাতের নাগালের মধ্যে নিয়ে এসেছে। আশা করি অদুর ভবিষ্যতে বাংলাদেশেও ই-কমার্স আমাদের জীবনকে করে দিবে আরও সহজ। বাজার কিংবা মার্কেটিং নিয়ে আমাদের আর মাথা ব্যাথা করতে হবে না। হাত বাড়ালেই পেয়ে যাব সাধ্যের মধ্যে সকল পন্য। দেশের ই-কমার্স সেক্টর আরও অনেক দূর এগিয়ে যাবে এই আশা ব্যাক্ত করে আজ এখানেই শেষ করছি।

বাংলাদেশের ই-কমার্সের ভবিষ্যত যে খুবই উজ্জল তা স্পস্টতই লক্ষ করা যাবে অতিতের দিনগুলো দেখলে। গেল বছর যেখানে অনলাইন কেনাকাটার সংখ্যা যেখানে ১০০ কোটি টাকার নিচে ছিল সেখানে গেল ঈদ তা প্রায় ৫০০ কোটির কাছাকাছি চলে এসেছে।